বাঙ্গালোর, আষাঢ়, ১৩৩৫


 

প্রণতি


          কত ধৈর্য ধরি

ছিলে কাছে দিবসশর্বরী।

                   তব পদ-অঙ্কনগুলিরে

কতবার দিয়ে গেছ মোর ভাগ্যপথের ধূলিরে।

                                      আজ যবে

                             দূরে যেতে হবে

                                      তোমারে করিয়া যাব দান

                                                তব জয়গান।

কতবার ব্যর্থ আয়োজনে

                                      এ জীবনে

হোমাগ্নি উঠেনি জ্বলি,

                                      শূন্যে গেছে চলি

                   হতাশ্বাস ধূমের কুণ্ডলী।

                   কতবার ক্ষণিকের শিখা

                             আঁকিয়াছে ক্ষীণ টিকা

                   নিশ্চেতন নিশীথের ভালে।

লুপ্ত হয়ে গেছে তাহা চিহ্নহীন কালে।

এবার তোমার আগমন

                             হোমহুতাশন

                                      জ্বেলেছে গৌরবে।

                   যজ্ঞ মোর ধন্য হবে।

          আমার আহুতি দিনশেষে

করিলাম সমর্পণ তোমার উদ্দেশে।

          লহো এ প্রণাম--

                             জীবনের পূর্ণ পরিণাম।

                                                এ প্রণতি'-পরে

স্পর্শ রাখো স্নেহভরে।

          তোমার ঐশ্বর্য-মাঝে

সিংহাসন যেথায় বিরাজে,

                             করিয়ো আহ্বান,

সেথা এ প্রণতি মোর পায় যেন স্থান।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •