কলিকাতা, ২৩ শ্রাবণ, ১৩৩৫


 

অর্ঘ্য


সূর্যমুখীর বর্ণে বসন

            লই রাঙায়ে,

অরুণ আলোর ঝংকার মোর

            লাগলো গায়ে।

অঞ্চলে মোর কদমফুলের ভাষা

বক্ষে জড়ায় আসন্ন কোন্‌ আশা,

       কৃষ্ণকলির হেমাঞ্জলির

                   চঞ্চলতা

       কঞ্চুলিকার স্বর্ণলিখায়

                   মিলায় কথা।

আজ যেন পায় নয়ন আপন

            নতুন জাগা।

আজ আসে দিন প্রথম দেখার

            দোলন-লাগা।

এই ভুবনের একটি অসীম কোণ,

যুগলপ্রাণের গোপন পদ্মাসন,

সেথায় আমায় ডাক দিয়ে যায়

            নাই জানা কে,

সাগরপারের পান্থপাখির

            ডানার ডাকে।

চলব ডালায় আলোকমালায়

            প্রদীপ জ্বেলে,

ঝিল্লিঝনন অশোকতলায়

            চমক মেলে।

আমার প্রকাশ নতুন বচন ধ'রে

আপনাকে আজ নতুন রচন ক'রে,

ফাগুনবনের গুপ্ত ধনের

            আভাস-ভরা,

রক্তদীপন প্রাণের আভায়

            রঙিন-করা।

চক্ষে আমার জ্বলবে আদিম

            অগ্নিশিখা,

প্রথম ধরায় সেই যে পরায়

            আলোর টিকা।

নীরবে হাসির সোনার বাঁশির ধ্বনি

করবে ঘোষণ প্রেমের উদ্‌বোধনী,

প্রাণদেবতার মন্দিরদ্বার

            যাক রে খুলে,

অঙ্গ আমার অর্ঘ্যের থাল

            অরূপ ফুলে।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •