কলিকাতা, ২৪ শ্রাবণ, ১৩৩৫


 

        মায়া


       চিত্তকোণে ছন্দে তব

            বাণীরূপে

       সংগোপনে আসন লব

            চুপে চুপে।

সেইখানেতেই আমার অভিসার,

       যেথায় অন্ধকার

ঘনিয়ে আছে চেতন-বনের

       ছায়াতলে,

যেথায় শুধু ক্ষীণ জোনাকির

       আলো জ্বলে।

সেথায় নিয়ে যাব আমার

       দীপশিখা,

গাঁথব আলো-আঁধার দিয়ে

       মরীচিকা।

মাথা থেকে খোঁপার মালা খুলে

       পরিয়ে দেব চুলে--

গন্ধ দিবে সিন্ধুপারের

       কুঞ্জবীথির,

আনবে ছবি কোন্‌ বিদেশের

       কী বিস্মৃতির।

পরশ মম লাগবে তোমার

       কেশে বেশে,

অঙ্গে তোমার রূপ নিয়ে গান

       উঠবে ভেসে।

ভৈরবীতে উচ্ছল গান্ধার,

       বসন্তবাহার,

পূরবী কি ভীমপলাশি

       রক্তে দোলে--

রাগরাগিণী দুঃখে সুখে

       যায়-যে গ'লে।

হাওয়ায় ছায়ায় আলোয় গানে

       আমরা দোঁহে

আপন মনে রচব ভুবন

       ভাবের মোহে।

রূপের রেখায় মিলবে রসের রেখা,

       মায়ার চিত্রলেখা--

বস্তু হতে সেই মায়া তো

       সত্যতর,

তুমি আমায় আপনি র'চে

       আপন কর।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •