আলমোড়া, ২৬ জ্যৈষ্ঠ, ১৩১০


 

২৪


হে নিস্তব্ধ গিরিরাজ, অভ্রভেদী তোমার সংগীত

তরঙ্গিয়া চলিয়াছে অনুদাত্ত উদাত্ত স্বরিত

প্রভাতের দ্বার হতে সন্ধ্যার পশ্চিমনীড়-পানে

দুর্গম দুরূহ পথে কী জানি কী বাণীর সন্ধানে!

দুঃসাধ্য উচ্ছ্বাস তব শেষ প্রান্তে উঠি আপনার

সহসা মুহূর্তে যেন হারায়ে ফেলেছে কণ্ঠ তার,

ভুলিয়া গিয়াছে সব সুর -- সামগীত শব্দহারা

নিয়ত চাহিয়া শূন্যে বরষিছে নির্ঝরিণীধারা।

 

হে গিরি,যৌবন তব যে দুর্দম অগ্নিতাপবেগে

আপনারে উৎসারিয়া মরিতে চাহিয়াছিল মেঘে

সে তাপ হারায়ে গেছে, সে প্রচণ্ড গতি অবসান --

নিরুদ্দেশ চেষ্টা তব হয়ে গেছে প্রাচীন পাষাণ।

পেয়েছ আপন সীমা, তাই আজি মৌন শান্ত হিয়া

সীমাবিহীনের মাঝে আপনারে দিয়েছ সঁপিয়া।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •