শ্রাবণ?-আশ্বিন, ১৩৩৫ 


 

নাম্নী - উষসী


ভোরের আগের যে প্রহরে

       স্তব্ধ অন্ধকার-'পরে

সুপ্তি-অন্তরাল হতে দূর সূর্যোদয়

              বনময়

পাঠায় নূতন জাগরণী,

              অতি মৃদু শিহরণী

              বাতাসের গায়ে;

          পাখির কুলায়ে

অস্পষ্ট কাকলি ওঠে আধোজাগা স্বরে,

              স্তম্ভিত আগ্রহভরে

অব্যক্ত বিরাট আশা ধ্যানে মগ্ন দিকে দিগন্তরে--

ও কোন্‌ তরুণ প্রাণে করিয়াছে ভর,

              অন্তর্গূঢ় সে প্রহর

              আত্ম-অগোচর।

          চিত্ত তার আপনার গভীর অন্তরে

              নিঃশব্দে প্রতীক্ষা করে

              পরিপূর্ণ সার্থকতা লাগি।

          সুপ্তি-মাঝে প্রতীক্ষিয়া আছে জাগি

              নির্মল নির্ভয়

              কোন্‌ দিব্য অভ্যুদয়।

কোন্‌ সে পরমা মুক্তি, কোন্‌ সেই আপনার

     দীপ্যমান মহা আবিষ্কার।

প্রভাতমহিমা ওর সম্‌বৃত রয়েছে নিশ্চেতনে,

     তাহারি আভাস পাই মনে।

          আমি ওই রথশব্দ শুনি,

সোনার বীণার তারে সংগীত আনিছে কোন্‌ গুণী।

              জাগিবে হৃদয়,

     ভুবন তাহার হবে বাণীময়;

          মানসকমল একমনা

নবোদিত তপনের করিবে প্রথম অভ্যর্থনা।

        জাগিবে নূতন দিবা উজ্জ্বল উল্লাসে

বর্ণে গন্ধে গানে প্রাণে মহোৎসবে তার চারি পাশে।

     নিরুদ্ধ চেতনা হতে হবে চ্যুত

     লালসা-আবেশে জড়ীভূত

          স্বপ্নের শৃঙ্খলপাশ।

বিলুপ্ত করিবে দূরে উন্মুক্ত বাতাস

দুর্বল দীপের গাঢ় বিষতপ্ত কলুষনিশ্বাস।

     আলোকের জয়ধ্বনি উঠিবে উচ্ছ্বসি--

          নাম কি উষসী।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •