শান্তিনিকেতন, ভাদ্র? ১৩৩৬


 

      উজ্জীবন


ভস্ম-অপমানশয্যা ছাড়ো পুষ্পধনু,

রুদ্রবহ্নি হতে লহ জ্বলদর্চি তনু।

                 যাহা মরণীয় যাক মরে,

        জাগো অবিস্মরণীয় ধ্যানমূর্তি ধরে।

                 যাহা রূঢ়, যাহা মূঢ় তব,

        যাহা স্থূল, দগ্ধ হোক, হও নিত্য নব।

                 মৃত্যু হতে জাগো পুষ্পধনু,

        হে অতনু, বীরের তনুতে লহো তনু।

মৃত্যুঞ্জয় তব শিরে মৃত্যু দিলা হানি;

অমৃত সে-মৃত্যু হতে দাও তুমি আনি।

                 সেই দিব্য দীপ্যমান দাহ

        উন্মুক্ত করুক অগ্নি-উৎসের প্রবাহ।

                 মিলনেরে করুক প্রখর,

        বিচ্ছেদেরে করে দিক দুঃসহ সুন্দর।

                 মৃত্যু হতে জাগো পুষ্পধনু,

        হে অতনু, বীরের তনুতে লহো তনু।

দুঃখে সুখে বেদনায় বন্ধুর যে-পথ

সে দুর্গমে চলুক প্রেমের জয়রথ।

                 তিমিরতোরণে রজনীর

        মন্দ্রিবে সে রথচক্রনির্ঘোষ গম্ভীর।

                 উল্লঙ্ঘিয়া তুচ্ছ লজ্জা ত্রাস

        উচ্ছলিবে আত্মহারা উদ্‌বেল উল্লাস।

                 মৃত্যু হতে ওঠো পুষ্পধনু,

        হে অতনু, বীরের তনুতে লহো তনু।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •